সিরিয়া সংঘাতকে কেন্দ্র করে পৃথিবী নতুন এক বিশ্বযুদ্ধের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে : রুশ প্রধানমন্ত্রী

ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০১৬
৪৭১ Views

সিরিয়া সংঘাতকে কেন্দ্র করে পৃথিবী নতুন এক বিশ্বযুদ্ধের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বলে আবারও সতর্ক করলো রাশিয়া। জার্মানির মিউনিখে বার্ষিক নিরাপত্তা সম্মেলনে এ মন্তব্য করে রুশ প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেন, প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার অভাবে এ আশঙ্কা দিন দিন বাড়ছে।

এদিকে, সিরিয়া সঙ্কটের সমাধান না হওয়ার জন্য সেদেশে রুশ সামরিক হস্তক্ষেপকে দায়ী করেন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো। তবে সিরিয়ায় রাশিয়ার সামরিক হস্তক্ষেপের কারণে সেখানে ক্ষমতার ভারসাম্য প্রতিষ্ঠা হয়েছে বলে মত আসাদ সরকার সমর্থকদের।

সিরিয়া সংঘাত বন্ধে বিশ্ব সম্প্রদায়ের নানা উদ্যোগের মধ্যেই আলেপ্পোসহ দেশটির পূর্বাঞ্চলের বিদ্রোহী অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে রুশ বিমান হামলা অব্যাহত আছে। পাশ্চাত্যের পক্ষ থেকে এ কারণে রাশিয়ার বিরুদ্ধে বেসামরিক হত্যার অভিযোগ আনা হলেও; সাধারণ সিরিয়দের মতামত পুরো ভিন্ন।

তারা বলেন, রাশিয়ার সামরিক হস্তক্ষেপে সিরিয়ায় পাশ্চাত্যের সঙ্গে ক্ষমতার ভারসাম্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। রাশিয়া বন্ধুর মতো আমাদের পাশে দাঁড়িয়েছে।’

একই বিষয় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনেও। রাশিয়া প্রথমে সিরিয়ায় আইএস বিরোধী অভিযান শুরু করলেও; সাম্প্রতিক সময়ে তারা আসাদ সরকার বিরোধী মধ্যপন্থি বিদ্রোহীদের অবস্থানে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের।

শনিবার সম্মেলনে রাখা বক্তব্যে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের তীব্র সমালোচনার পাশাপাশি সিরিয়ায় রুশ নীতির নিন্দা জানান ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট পেত্রো পোরোশেঙ্কো।

তিনি বলেন, ‘ইউক্রেনে যে সঙ্কট চলছে, তা আমাদের অভ্যন্তরীণ কোনো সমস্যা নয়। রাশিয়ার আগ্রাসনের ফলেই এই সঙ্কটের সৃষ্টি। আর এখন সিরিয়ায় যা হচ্ছে, তাও কোনো গৃহযুদ্ধ নয়। রাশিয়ার ভুল নীতির কারণেই সেখানে সংঘাত বেড়ে চলেছে।’

তবে রাশিয়ার প্রতি ন্যাটোসহ পাশ্চাত্যের আস্থাহীনতাকে উদ্বেগজনক উল্লেখ করে পারস্পরিক সহযোগিতা বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন রুশ প্রধানমন্ত্রী দিমিত্রি মেদভেদেভ। একে অপরের প্রতি অভিযোগ ছুঁড়ে দেয়ার রেওয়াজ বন্ধ না করলে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ারও আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। সেই সঙ্গে রাশিয়ার বিরুদ্ধে সিরিয়ায় বেসামরিক হত্যার অভিযোগ নাকচ করে দেন রুশ প্রধানমন্ত্রী।

দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেন,’ ন্যাটো, ইউরোপ ও আমেরিকা আমাদেরকে সবচেয়ে বড় হুমকি মনে করে। তারা যেসব সিনেমা বানায়, তাতে দেখানো হয় রাশিয়া আরেকটি বিশ্বযুদ্ধ বাধিয়ে দিচ্ছে। আমার ভাবতে অবাক লাগে, আমরা কী ২০১৬ সালে আছি, না-কি ১৯৬২ সালে। পারস্পরিক আস্থা গড়ে তোলা অত্যন্ত কঠিন, কিন্তু বড় ধরনের বিপদ এড়াতে আমাদেরকে অবশ্যই মতপার্থক্য কমিয়ে আনতে হবে।’

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গতবছর ইউক্রেন সঙ্কট নিয়ে মস্কো-ওয়াশিংটনের মধ্যে উত্তেজনা চরমে পৌঁছানোর পর, এবার সিরিয়া বিষয়ে আবারো পাশ্চাত্যের সঙ্গে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে রাশিয়ার।

Leave A Comment